বেসিক ইলেক্ট্রিসিটি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন-উত্তর

বেসিক ইলেক্ট্রিসিটি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন-উত্তর-১
বেসিক ইলেক্ট্রিসিটি এর শুধুমাত্র কিছু বেসিক সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন-উত্তর নিয়ে এখানে আলোচনা করা হল, অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে এগুলো থেকে বিভিন্ন নিয়োগ-ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন এসেছে। এখানে কিছু শেয়ার করলাম। (SAE Electrical Job Preparation)

কারেন্ট কাকে বলে?
পরিবাহী পদার্থের মধ্যকার মুক্ত ইলেকট্রন সমূহ একটি নিদ্রিষ্ট দিকে প্রবাহিত হওয়ার হারকেই কারেন্ট বলে। ইহাকে I বা i দ্বারা প্রকাশ করা হয়, এর একক অ্যাম্পিয়ার (A বা Amp.) অথবা কুলম্ব/সেকেন্ড ।

ভোল্টেজ কাকে বলে?
পরিবাহী পদার্থের পরমাণুগুলির মুক্ত ইলেকট্রন সমূহকে স্থানচ্যুত করতে যে বল বা চাপের প্রয়োজন সেই বল বা চাপকেই বিদ্যুৎ চালক বল বা ভোল্টেজ বলে। একে V দ্বারা প্রকাশ করা হয় এর একক Volts.

রেজিষ্ট্যান্স কাকে বলে?
পরিবাহী পদার্থের মধ্য দিয়ে কারেন্ট প্রবাহিত হওয়ার সময় পরিবাহী পদার্থের যে বৈশিষ্ট্য বা ধর্মের কারণে উহা বাধাগ্রস্ত হয় উক্ত বৈশিষ্ট্য বা ধর্মকেই রোধ বা রেজিষ্ট্যান্স বলে। এর প্রতীক R অথবা r, আর একক ওহম (Ω)।

রেজিষ্ট্যান্স এর সূত্রাবলী লিখ
রেজিষ্ট্যান্স এর সূত্রাবলী নিন্মে দেয়া হলঃ
১। একটি পরিবাহীর রেজিষ্ট্যান্স উহার দীর্ঘের সমানুপাতিক, যদি প্রস্থচ্ছেদ স্থির থাকে । অর্থাৎ R α L
২। একটি পরিবাহীর রেজিষ্ট্যান্স উহার প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফলের উল্টানুপাতিক , যদি দৈর্ঘ্য স্থির থাকে । অর্থাৎ R α 1/A
৩। একটি পরিবাহীর রেজিষ্ট্যান্স উহার উপাদানের (Material) উপর নির্ভরশীল, যদি দৈর্ঘ্য ও প্রস্থচ্ছেদ স্থির থাকে ।
অর্থাৎ R α L/A (প্রথম দুটি একত্রে) অথবা R = ρL/A ওহম (যেখানে ρ একটি ধ্রুবক, ইহা পদার্থের আপেক্ষিক রেজিষ্ট্যান্স বা রেজিষ্টিভিটি ) ।

রেজিষ্টিভিটি কাকে বলে?
নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় একক দৈর্ঘ্য ও একক প্রস্থচ্ছেদের ক্ষেত্রফল বিশিষ্ট কোন একটি পরিবাহী পদার্থের অথবা একক বাহু বিশিষ্ট কোন একটি ঘনক আকৃতির পরিবাহী পদার্থের দুটি বিপরীত তলের মধ্যবর্তী রোধ বা রেজিস্ট্যান্সকে উক্ত পরিবাহীর রেজিস্টিভিটি, Specific Resistance বা আপেক্ষিক রোধ বলে।

সার্কিট বা বর্তনী কাকে বলে?
সার্কিট একটি বদ্ধ পথ, যাহার মধ্যে দিয়ে কারেন্ট প্রবাহিত হইতে পারে তাকে সার্কিট বা বর্তনী বলে।

কারেন্ট সোর্স কাকে বলে?
কারেন্ট সোর্স এমন একটি সোর্স বা উৎস যা লোড রেজিস্ট্যান্সের পরিমান যাই হোকনা কেন ইহার প্রান্তদ্বয়ের মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমান কারেন্ট প্রবাহিত করে ।

ভোল্টেজ সোর্স কাকে বলে?
ভোল্টেজ সোর্স এমন একটি সোর্স বা উৎস যা লোড রেজিস্ট্যান্সের পরিমান যাই হোকনা কেন ইহার প্রান্তদ্বয়ে নির্দিষ্ট পরিমান ভোল্টেজ পাওয়া যায় ।

ওহমের সুত্র (Ohm’s Law) লিখ
ওহমের সুত্রঃ স্থির তাপমাত্রায় কোন বর্তনীর মধ্য দিয়ে যে কারেন্ট প্রবাহিত হয়, তাহা ঐ বর্তনীর দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্যের সহিত সরাসরি সমানুপাতিক এবং রেজিস্টেন্সের সহিত উল্টানুপাতিক। অর্থাৎ I αV or I α1/V or I =V/R

ওহমের সূত্রটির ইংরেজি ভার্শন সবার জেনে রাখা দরকার, তাই ইংরেজি ভার্শনটিও এখানে উল্লেখ করা হলঃ
Ohm’s law Very basic circuit law that defines the relationships between current, voltage, and resistance in a DC circuit. Ohm’s law states that current is directly proportional to voltage and inversely proportional to resistance. (I = V/R) The other forms of the formula are V = IR and R =V/I.

কারশফস এর সুত্র লিখ
কারশফের কারেন্ট সুত্র (KCL) কোন বৈদ্যুতিক নেটওয়ার্কের এক বিন্দুতে মিলিত কারেন্ট সমুহের বীজগাণিতিক যোগফল শুন্য অথবা কোন বিন্দুতে আগত কারেন্ট = নির্গত কারেন্ট।

কারশফের ভোল্টেজ সুত্র (KVL) কোন বদ্ধ বৈদ্যুতিক নেটওয়ার্কের সকল ই.এম.এফ এবং সকল ভোল্টেজ ড্রপের বীজগাণিতিক যোগফল শুন্য।

বিদ্যুচৌম্বক আবেশ (Electromagnetic Induction) কাকে বলে?
যখন কোন পরিবাহী বা কন্ডাকটরের সাথে সংশ্লিষ্ট চৌম্বক ফ্লাক্স পরিবর্তিত হয়, তখন পরিবাহীটির ভিতরে একটি ই. এম. এফ আবিষ্ট হয়। যদি পরিবাহীটি একটি লুপ বা সার্কিট গঠন করে, তবে এতে কারেন্ট প্রবাহিত হবে। এই প্রক্রিয়াকেই বিদ্যুচৌম্বক আবেশ (Electromagnetic Induction) বলে।

ফ্যারাডের সূত্র লিখ-
প্রথম সুত্রঃ একটি তার বা কয়েলে ই. এম. এফ আবিষ্ট হয় তখন, যখন উক্ত তার বা কয়েলের সাথে সংশ্লিষ্ট চৌম্বক ফ্লাক্স বা চৌম্বক বল রেখার পরিবর্তন ঘটে।
দ্বিতীয় সুত্রঃ আবেশিত বিদ্যুচ্চালক বল এর পরিমান চৌম্বক বল রেখার পরিবর্তনের হারের সাথে সরাসরি সমানুপাতিক।

উপরোক্ত সূত্র দুটি একত্রে এভাবে লেখা যায়ঃ একটি পরিবাহী এবং একটি চৌম্বক ক্ষেত্রে আপেক্ষিক গতি যখন এরুপভাবে বিদ্যমান থাকে যে, পরিবাহীটি চৌম্বক ক্ষেত্রটিকে কর্তন করে, তখন পরিবাহিতে আবেশিত একটি বিদ্যুচ্চালক বল সংঘটিত কর্তনের হারের সাথে সমানুপাতিক।

লেনজের সূত্র লিখ। লেনজের সূত্র কোথায় ব্যবহার হয়?
আবেশিত বিদ্যুচ্চালক বলের কারনে পরিবাহী তারে প্রবাহিত আবেশিত কারেন্ট পরিবাহী তারের চারপাশে একটি চৌম্বক ক্ষেত্র সৃষ্টি করে, যা দারা আবেশিত কারেন্টের উৎপত্তি, উহাকেই (অর্থাৎ পরিবর্তনশীল ফ্লাক্স) এ (সৃষ্ট চৌম্বক ক্ষেত্র) বাধা প্রদান করে । যেখানে পরিবাহী স্থির এবং চৌম্বক ক্ষেত্র গতিতে থাকে সেখানে লেনজের সূত্র ব্যবহার হয়।

ফ্লেমিং এর রাইট হ্যান্ড রুল কি?
দক্ষিণ হস্তের বৃদ্ধাঙ্গুলি, তর্জনী ও মধ্যমাকে পরস্পর সমকোণে রেখে বিস্তৃত করলে যদি তর্জনী চৌম্বক বলরেখার অভিমুখ এবং বৃদ্ধাঙ্গুলি পরিবাহী তারের ঘূর্ণনের অভিমুখ নির্দেশ করে, তবে মধ্যমা পরিবাহিতে প্রবাহিত আবেশিত কারেন্টের অভিমুখ নির্দেশ করেবে। ইহাই ফ্লেমিং এর রাইট হ্যান্ড রুল।

ফ্লেমিং এর রাইট হ্যান্ড রুল কোথায় প্রযোজ্য হয়?
যেখানে চৌম্বক ক্ষেত্র স্থির এবং পরিবাহী গতিতে থাকে, সেখানে ফ্লেমিং এর রাইট হ্যান্ড রুল ব্যবহার করা হয়।

মিউচুয়াল ইনডাকট্যাঁন্স কাকে বলে?
যে বৈশিষ্ট্য বা ধর্মের কারনে পাশাপাশি দুটি কয়েলে একটির কারেন্টের পরিবর্তনের ফলে অন্যটিতে ভোল্টেজ আবিষ্ট হয় উক্ত ধর্ম বা বৈশিষ্ট্যকে মিউচুয়াল ইনডাকট্যাঁন্স বলে।

সেলফ ইনডাকট্যাঁন্স কাকে বলে?
এটা কয়েলের এমন একটি ধর্ম বা বৈশিষ্ট্য, যা কয়েলে প্রবাহিত কারেন্ট বা কয়েলের চারদিকের ফ্লাক্সের হ্রাস- বৃদ্ধিতে বাধা দান করে।

হিসটেরেসিস কাকে বলে?
চৌম্বক গুণাবলীর কিছুটা অংশ চৌম্বক পদার্থ কত্রিক নিজের মধ্যে রেখে দেয়ার প্রবনতাকেই হিসটেরেসিস বলে।

চৌম্বকী করন চক্র কাকে বলে?
একটি লোহাকে চুম্বকে পরিনত করা, আবার চুম্বকহীন করা এবং আবার চুম্বকে পরিনত করা, আবার চুম্বকহীন করা, এই প্রক্রিয়া অনবরত চলতেই থাকলে এই প্রক্রিয়াকেই চৌম্বকী করন চক্র (সাইকেল অব ম্যাগনেটাইজেশন) বলে।

ম্যাগনেটাইজেশন বা B-H কার্ভ কি?
X- এক্সিস কে ম্যাগনেটাইজিং ফোরস (H) এবং Y- এক্সিস কে ফ্লাক্স ডেনসিটি (B) হিসেবে ধরে যে কার্ভ আকা হয় তাকে ম্যাগনেটাইজেশন বা B-H কার্ভ বলে।

এডি কারেন্ট কি?
যখন একটি বৈদ্যুতিক চুম্বকের কয়েলের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত কারেন্ট পরিবর্তিত হতে থাকে, তখন চৌম্বক ক্ষেত্রও পরিবর্তিত হতে থাকে। এই পরিবর্তনশীল ফ্লাক্স কয়েলের তারকে কর্তন করে, ফলে কয়েলে একটি ভোল্টেজের সৃষ্টি হয়। একই সময়ে এই ফ্লাক্স লৌহ দণ্ডকেও কর্তন করে। ফলে এই লৌহ দণ্ডেও ভোল্টেজের সৃষ্টি হয়। এই ভোল্টেজের কারনে লৌহ দণ্ডে একটি কারেন্ট আবর্তিত হতে থাকে, এই আবর্তিত কারেন্টকেই এডি কারেন্ট বলে।

এডি কারেন্ট লস কাকে বলে? এডি কারেন্ট লস কোথায় হয়?
চৌম্বক উপাদানের মজ্জায় আবর্তমান বা এডি কারেন্টের কারনে কিছু অপচয় হয়, একে এডি কারেন্ট লস বলে। জেনারেটর, মোটর, ট্রান্সফরমার ইত্যাদি ইলেকট্রিক্যাল মেশিনের আয়রন কোরে এডি কারেন্ট লস হয়ে থাকে।

পজিটিভ ও নেগেটিভ তাপমাত্রা সহগ কাকে বলে?
যে সকল পদার্থের তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে রেজিস্ট্যান্স বৃদ্ধি পায় তাকে পজিটিভ তাপমাত্রা সহগ আর যে সকল পদার্থের তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে রেজিস্ট্যান্স কমে যায় তাকে নেগেটিভ তাপমাত্রা সহগ বলে।

এই মডেল টেস্টটি ডাউনলোড করুন-
Download করতে ক্লিক করুন

Download instruction:
* Click the link as your need.
* When open a new link wait 6-8 seconds, then click Skip Ad (Right Side). SKIP AD এ ক্লিক করার পর Download করতে হবে। Save the file to your computer.

Download

SKIP AD এ ক্লিক করার পর Download শুরু হবে।

প্রশ্ন-উত্তর ট্রান্সফরমার-১ দেখুন

Share this post for your friend (সবার জন্য এই লিংকটি শেয়ার করুন)

PinIt
শুধু পাঠক হিসাবে নয় আমরা আপনাকে চাই একজন শিক্ষক ও লেখক হিসাবে। প্রয়োজনীয় ছবি সহ আমাদেরকে লিখুন ইমেইলে- etipsbdinfo@gmail.com