ইঞ্জিন-জেনারেটর কন্ট্রোল সিস্টেম আইডিয়া

একবার ভাবলাম এই পোস্টটি ইংলিশেই করবো, অর্ধেকটা লিখেও সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে বাংলায় লেখার সিদ্ধান্ত নিলাম। যাইহোক আজ আমরা ইঞ্জিন-জেনারেটর অটোমেশন, ইঞ্জিন-জেনারেটর মডার্ন কন্ট্রোল সিস্টেম, জেনারেটর ও ইঞ্জিনের ইলেকট্রিক্যাল সিস্টেম সম্পর্কে কিছু বেসিক আলোচনা করবো । আমরা কন্ট্রোল প্যানেল বলতে সাধারণত রিমুট প্যানেলকে বুঝি, একটি মেশিনকে দূর থেকে নিয়ন্ত্রণ, মনিটরিং করাকে বুঝায়। একটি আধুনিক কন্ট্রোল প্যানেল এর বৈশিস্ট্য হল এর ইনপুট বেশি, তাই আউটপুটও বেশি (মানে সুযোগ সুবিধা বেশি)। আধুনিক ইঞ্জিনগুলোতে নিজস্ব কন্ট্রোল প্যানেল থাকে (ইঞ্জিন মাউন্টেড) কিন্তু আরো বেশি সুবিধা পেতে এবং দূর থেকে নিয়ন্ত্রণ, মনিটরিং, সিনক্রোনাইজিং এবং আরো বেশি প্রটেকশনের জন্য আধুনিক কন্ট্রোল প্যানেল ব্যবহার করা হচ্ছে । আর এটি দিন দিন আরো উন্নত হচ্ছে। এখানে আমার একটা আইডিয়া আমি শেয়ার করছি, এখানে প্রথমে একটি ডিভাইস এর নাম বলি যার নাম আমি দিলাম EGC (Engine Generator Control) এটি থাকবে কন্ট্রোল রুমের ভিতরের প্যানেলে। এটিতে ইঞ্জিন ও জেনারেটরের বিভিন্ন ইনপুট থাকবে সে অনুযায়ী আউটপুট তৈরি হবে। ইঞ্জিন থেকে ইঞ্জিনের সকল ডাটা, কন্ট্রোল সিস্টেম, এনালগ ও ডিজিটাল ইনপুট আসবে এই EGC তে। একই ভাবে জেনারেটরের সকল ডাটা, এসি মিটারিং এর জন্য সকল ইনপুট এবং কন্ট্রোল এর জন্য অন্যান্য ডিজিটাল ও এনালগ ইনপুট ডাটা এখানে আসবে। আবার পারালেলে চালিত অন্যান্য জেনারেটরের ডাটাও এখানে আসবে ইনপুট হিসেবে, কিন্তু পারালেলে চালিত অন্যান্য ইঞ্জিনের ডাটা এখানে আসবেনা।

EGC
চিত্র-১

EGC কেমন হবে?

এটি PLC (input/output card), CPU, Relay Bank, other electronic card ইত্যাদি দিয়ে একটি কমপ্যাক্ট মডিউল হবে। এখানে বিভিন্ন ইনপুট দেবার ও আউটপুট নেবার কানেক্টর থাকবে। এখান থেকে নেটওয়ার্কিং পোর্ট বাহির হবে, এবং টাচ স্ক্রিন মনিটর বা IPC তে দেবার পোর্ট থাকবে। এটি 24V DC সাপ্লাইয়ে চলবে। এটিতে বাহির হতে প্রোগ্রাম ইনপুট দেবার বা software install দেবার ব্যবস্থা থাকবে। একটি কন্ট্রোল রুমে অন্যান্য প্যনেলের সাথে একটি নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা থাকবে। ইন্টারনেট কানেকশন ব্যবস্থা থাকতে পারে যেন পৃথিবীর যেকোন যায়গা থেকে এটির মনিটরিং ও ট্রাবলশুটিং করতে পারে। এটিই হতে পারে একটি আধুনিক ইঞ্জিন জেনারেটর কন্ট্রোল সিস্টেমে, যার নাম আমরা দিলাম EGC. উপরে EGC এর একটি মডেল দেখানো হল। ডাটা এখানে প্রসেসিং হয়ে একটি আউটপুট পাওয়া যাবে, সেটি কন্ট্রোল, প্রটেক্টিং ও মনিটরিং বা উভয় হতে পারে। মানে আপনি ইঞ্জিন চালু করবেন কন্ট্রোল প্যানেল থেকে একটি ইনপুট সিগনাল EGC তে দিতে হবে, সে প্রসেসিং করে একটি আউটপুট সিগনাল তৈরি করে ইঞ্জিনে পাঠাবে আর ইঞ্জিন চালু হবে। এভাবে প্রত্যেকটি অপশন কাজ করবে।

generator data to EGC
চিত্র-২
engine data to EGC
চিত্র-৩

এবার আসি ইনপুট দিব কিভাবে?
জেনারেটরে ডাটা গুলো দিতে পারি (সাধারণত এসি ইনপুট) CT, PT, সুইস এগুলোর মাধ্যমে। এই ডাটাগুলোর মাধ্যমে CPU সকল ডাটা তৈরি করে নিতে পারবে। ইঞ্জিনের ডাটাগুলো ইঞ্জিনের প্যানেলের ডাটা লিংক ক্যাবল থেকে, বিভিন্ন সেন্সর থেকে দেয়া যেতে পারে। চিত্র-২ দেখেন জেনারেটর থেকে কিছু ইনপুট EGC তে দেয়া হচ্ছে, চিত্র-৩ দেখেন ইঞ্জিন এর কিছু সিস্টেম এর নাম দেয়া আছে এগুলো থেকে ইঞ্জিনের ডাটা EGC তে দেয়া হবে।

কিভাবে কাজ করবে উদাহরন দেখুনঃ

মনে করেন আপনি ইঞ্জিন চালু করবেন- আপনি কন্ট্রোল প্যানেলের ইঞ্জিন কন্ট্রোল মেনুতে গিয়ে স্টার্ট বাটন চাপ দিবেন। এটি EGC তে একটি ডিজিটাল ইনপুট হিসেবে যাবে। সেখান থেকে একটি ডিজিটাল আউটপুট তৈরি হয়ে ইঞ্জিনের ECP তে ইনপুট হিসেবে পাবে এবং ইঞ্জিনের স্টারটিং মোটরে একটি সিগন্যাল দিবে। ইঞ্জিন স্টারটিং মোটর ইঞ্জিনকে ঘুরাতে থাকবে, একটি ডিফাইন RPM এ ইঞ্জিন স্টারটিং এর অন্যান্য সিস্টেম চালু হবে (ফুয়েল সিস্টেম, ইগনিশন সিস্টেম) আর এভাবে ইঞ্জিন চালু হবে। এভাবে সকল কন্ট্রোল আপনি এই রিমুট প্যানেল থেকেই করবেন, যখন যেটা মনিটরিং এর দরকার হবে সে মেনুতে গিয়ে দেখতে পারবেন।

সকল মনিটরিং এর জন্য ইনপুট হিসেবে থাকবে বিভিন্ন প্রকার সেন্সর। ডেটোনেশন সেন্সর- এটি কি করবে জানেন? এটি ইঞ্জিনের মেকানিক্যাল নয়েজ ডিটেক্ট করে। কোন কারণে যদি ইঞ্জিনে মেকানিক্যাল ফল্ট হয়, এর কারণে যদি এবনরম্যাল সাউন্ড বা নকিং হয় এই সেন্সর তা ডিটেক্ট করবে এবং এর মাত্রা নির্ধারন করবে। সে অনুযায়ী একটি সিগন্যাল তৈরি হবে এবং ইঞ্জিনের ECP তে দিবে। ECP তে প্রোগ্রাম করা থাকবে কোন মাত্রার নকিংকে অ্যালার্ম দিবে আর কোন মাত্রার নকিং এর জন্য ইঞ্জিনকে Shutdown করে দিবে। এভাবে যদি এই সেন্সর কাজ করে, ইঞ্জিনের অন্যান্য সেন্সরগুলি কাজ করবে যা আমার আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

এবার ধরুন জেনারেটরের ভোল্টেজ বাড়াতে হবে এখন কি করবেন? এবার কন্ট্রোল প্যানেলে ভোল্টেজ কন্ট্রোল মেনুতে গিয়ে ভোল্টেজ রেইজ কমান্ড দিতে হবে, এটি EGC তে যাবে ডিজিটাল ইনপুট হিসেবে। এবার EGC এনালগ আউটপুট তৈরি করে তা দিবে AVR কে। AVR এবার কমান্ড পেয়ে জেনারেটরের ফিক্সড এক্সাইটারে দিবে, ফিক্সড এক্সাইটারের ফিল্ড স্ট্রেংথ বেড়ে গেলে মেইন এক্সাইটারের মাধ্যমে মেইন ফিল্ড স্ট্রেংথ বাড়বে, আর এর জন্য জেনারেটরের আউটপুট ভোল্টেজ বেড়ে যাবে।

আরো কি উদাহরন দেবার দরকার আছে?

এই মডেলটি ডাউনলোড (পিডিএফ) করুন-
Click Here to Download

ফেসবুকে কমেন্টস করতে, আপনার ফেসবুকে লগইন থাকতে হবে-

Share this post for your friend (সবার জন্য এই লিংকটি শেয়ার করুন)

PinIt
শুধু পাঠক হিসাবে নয় আমরা আপনাকে চাই একজন শিক্ষক ও লেখক হিসাবে। প্রয়োজনীয় ছবি সহ আমাদেরকে লিখুন ইমেইলে- etipsbdinfo@gmail.com