একই গাছের শেকড়ে আলু ও ডালে টমেটো চাষ


tometo-poteto

                                                           ছবিঃ সম্পাদনা।

গোড়ায় মাটির নীচে শেকড়ে আলু ও ডালে বা কান্ডে টমেটো চাষ করা হয়েছে। একই গাছের শেকড়ে আলু ও কান্ডে টমেটো চাষ একটি সহজ প্রযুক্তি। কুমিল্লায় বিএডিসির গবেষণায় আলু (পটেটো) ও টমেটোর চারার সঙ্গে গ্রাফটিং পদ্ধতিতে (জোড়কলম)‘পমেটো’র (পটেটো+টমেটো=পমেটো) কাংখিত উৎপাদনে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। একই গাছের শেকড়ে আলু ও কান্ডে টমেটোর বাম্পার ফলন কৃষি গবেষনায় এ অভূতপূর্ব ও বিস্ময়কর সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) অধীন জেলার বুড়িচং উপজেলার সৈয়দপুর উদ্যান উন্নয়ন কেন্দ্র।এ নিয়ে সংগৃহীত কিছু টিপস নিচে দেয়া হল-

১। একই দিনে জমি তৈরী করে মাঠে আলু রোপণ ও সীড বেডে টমেটো বীজ বপন করতে হবে।

­

২। বীজতলা তৈরীর পূর্বে আলুর জমিতে ২ থেকে ৩বার হালকা সেচ দিতে হয় এবং টমেটোর বীজতলায় ঝাঁঝরি দিয়ে একইভাবে সেচ দিতে হয়।

৩। টমেটো বীজ বপনের ১১ দিন পর ছোট চারাগুলো উঠিয়ে একটু ফাঁকা করে পূনরায় সীড বেডে রোপণ করতে হবে। এর ফলে টমেটো চারাগুলোর কান্ড মোটা, শক্ত, সবল হবে এবং নতুন কুশি ধারণ করবে যা সায়ন হিসেবে ব্যবহারের উপযুক্ত হবে।

৪। আলু ও টমেটো উভয় চারার বয়স ২২ দিন হলে গ্রাফটিং (ফাটল জোড় কলম) পদ্ধতির মাধ্যমে আলুর চারার সহিত টমেটোর চারা সেট করতে হবে। গ্রাফটিংকৃত চারাগুলো ছোট পলি ব্যাগ দ্বারা ঢেকে দিলে আর্দ্রতা ও তাপমাত্রা বজায় থাকবে এবং জোড়া লাগার হার বৃদ্ধি পাবে।

৫। গ্রাফটিং করার ৫ দিন ও ২০ দিন পর আবারো সেচ দিতে হয়। মাটির আর্দ্রতা বেশী থাকলে সেচের প্রয়োজন নেই।

৬। গ্রাফটিং এর ১৫-২০ দিনের মধ্যে টমেটোর ফুল ফুটবে। তবে জাতভেদে ফুল ধারন আগে-পিছে হতে পারে।

৭। আলু এবং টমেটো পৃথকভাবে চাষে যে পরিমাণ সারের প্রয়োজন হয়, একই গাছে আলু ও টমেটো চাষে তার চেয়ে বেশী সার ব্যবহার করতে হয়।

৮। ফাটল জোড় কলম করার জন্য প্রয়োজন- ব্লেড, জির ওয়ান পাতলা সাদা ১ ইঞ্চি ব্যাসের পলিথিন টেপ (জোড়ার স্থান বাঁধার জন্য), ছোট পলি ব্যাগ, পলিথিন সিট বা চট ইত্যাদি।

৯। শীতের শুরুতে অর্থাৎ মিড অক্টোবর থেকে নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে গ্রাফটিং পদ্ধতিতে একই গাছে আলু ও টমেটো চাষের উত্তম সময়। উক্ত সময় অর্থাৎ পুরো শীত মৌসুম দীর্ঘ দিন আলু মাটির নীচে রাখা সম্ভব। এর ফলে আলুর সাইজ বড় হয় ও টমেটোর ফলনও বৃদ্ধি পায়।

দেশের অধিক জনসংখ্যার জন্য খাদ্য-পুষ্টির চাহিদা পূরণ এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে এই পদ্ধতিতে আলু ও টমেটো চাষ বিশাল ভূমিকা রাখতে পারে। একই গাছের শেকড়ে আলু এবং কান্ডে টমেটো চাষ ‘মাঠ পর্যায়ে বিস্তারের জন্য জোরদার গবেষণা ও সমগ্র দেশে কৃষকের মাঝে প্রযুক্তি সম্প্রসারণের উদ্যেগ গ্রহণ করা দরকার।শহর বা অভিজাত এলাকার স্বল্প পরিসরের জায়গায় সৌখিন লোকজনের জন্য এ পদ্ধতিতে ‘একের ভেতর দুই’ হিসেবে পমেটোর চাষ অত্যন্ত সুবিধাজনক। বাড়ির পাশে অল্প জমিতে, বাড়ির আঙ্গিনায় ও ভবনের ছাদে  এই দো-ফলা চাষে আপনি এক্সট্রা কিছু ইনকাম অনায়াসে করতে পারেন।

এ রকম সাফল্যের ধারাবাহিকতায় এবং কৃষিতে আরো ব্যাপক গবেষণা ও বাস্তবতার নীরিখে যদি আরো সফলতা পাওয়া যায় তা আগামি দিনের কৃষকদের অংশগ্রহনে আমাদের বাংলাদেশ হবে অর্থনৈতিক স্বয়ংসম্পূর্ণ।

সূত্র : কৃষিবার্তা, বিডি উদ্যোক্তা, ইত্তেফাক, ই টিপস বিডি সম্পাদনা।

এই টিপসটি ডাউনলোড করুন (পিডিএফ ফাইল)-
Download instruction:
* Click the link as your need.
* When open a new link wait 6-8 seconds, then click Skip Ad (Right Side). SKIP AD এ ক্লিক করার পর Download শুরু হবে। Save the file to your computer.

Download

SKIP AD এ ক্লিক করার পর Download শুরু হবে।


Download করতে ক্লিক করুন

Share this post for your friend (সবার জন্য এই লিংকটি শেয়ার করুন)

PinIt
শুধু পাঠক হিসাবে নয় আমরা আপনাকে চাই একজন শিক্ষক ও লেখক হিসাবে। প্রয়োজনীয় ছবি সহ আমাদেরকে লিখুন ইমেইলে- etipsbdinfo@gmail.com